Author: শামসুজ্জোহা মানিক

ধর্ম আর জাত-পাতের সীমানা পেরিয়ে

বাংলায় এবং ভারতবর্ষে প্রাতিষ্ঠানিক বা প্রথাগত ধর্ম আর ‘জাত-পাতের’ সীমানা পেরিয়ে মানুষকে মিলন মেলায় নিবার প্রয়াস যুগ যুগ ধরে হয়েছে। অতীত কাল থেকে, এক দিকে, হিন্দু ধর্মের বর্ণজাতি প্রথা তথা ‘জাত-পাত’ থেকে হিন্দু সমাজকে মুক্ত করে একটা বৃহত্তর সামাজিক ঐক্য প্রতিষ্ঠা করা, অপর দিকে, হিন্দু ও মুসলমানকে বিদ্যমান প্রাতিষ্ঠানিক ধর্মের কাঠামো থেকে মুক্ত করে আরও … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

ধর্মের রাজনীতি ও আধুনিক সভ্যতা

ইউরোপ যদি ধর্মের শাসন থেকে তার রাষ্ট্র ও রাজনীতিকে মুক্ত করতে না পারত তবে কি ইউরোপ বা পাশ্চাত্য সভ্যতা আজ পৃথিবীর উপর এই আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করতে পারত? এর সহজ উত্তর হচ্ছে, না, পারত না। বরং ইউরোপ আজও মধ্যযুগের অন্ধকারে পড়ে থাকত। ফলে হয়ত পৃথিবীও পড়ে থাকত মধ্যযুগের অন্ধকারে। কারণ ধর্মের আধিপত্যের বিরুদ্ধে লড়াইটা ইউরোপ ছাড়া … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

ইসলাম ও আধুনিক সভ্যতা (শেষ পর্ব)

  শেষ পর্বে আলোচ্য বিষয়: ক) আধুনিক সভ্যতায় ইসলামের ভূমিকা খ) পঞ্চম অধ্যায়: নূতন বিশ্ববিপ্লবের প্রয়োজন   আধুনিক সভ্যতায় ইসলামের ভূমিকা বস্তুত এটি বুঝা খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে, ইসলামী সমাজ মাত্রই রাজনৈতিক সমাজ। ইংরাজী পরিভাষা ব্যবহার করলে একে পলিটি (polity) বলা যায়। কারণ ধর্মটিই রাজনৈতিক। ফলে ইসলামী সমাজে রাষ্ট্রকে ধর্ম থেকে পৃথক ঘোষণা করে কোন লাভ … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

ইন্টারনেট ও আসন্ন বিশ্ববিপ্লব

  পরিচ্ছেদসমূহ: (১)  মুদ্রণযন্ত্র উদ্ভাবনের ফলাফল (২)  ইসলামী সমাজে পরিবর্তনের সমস্যা (৩)  ইন্টারনেট এবং ইসলামী বিশ্বে বিপ্লবের আসন্নতা (১) মুদ্রণ যন্ত্র উদ্ভাবনের ফলাফল আধুনিক সভ্যতার উত্থান পশ্চিম ইউরোপ থেকে। এর পিছনে অনেক ফ্যাক্টর বা প্রভাবক কাজ করেছিল। তবে এর সূচনা যে মূলত রেনেসাঁ অর্থাৎ পুনরুজ্জীবন বা নবজাগরণের মাধ্যমে সেটা আমরা জানি। এই রেনেসাঁ বা নবজাগরণের … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

ইসলাম ও আধুনিক সভ্যতা (৩য় পর্ব)

    ইসলামের সমস্যা     মুসলিম বা ইসলামী সমাজের সমস্যা প্রকৃতপক্ষে ইসলামের সমস্যা। কারণ মুসলিম সমাজ গঠনের মূল ভিত্তি ইসলাম ধর্ম তথা ইসলামী প্রথা, বিশ্বাস এবং মূল্যবোধ। এগুলির প্রধান উৎস কুরআন ও হাদীস। কুরআন হচ্ছে ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা মুহাম্মদের বলা সেই সকল বাণীর সংকলন যেগুলিকে সরাসরি আল্লাহর প্রত্যাদেশ বলা হয়, আর হাদীস হচ্ছে মুহাম্মদের কথা, … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

ইসলাম ও আধুনিক সভ্যতা (২য় পর্ব)

  আগের পর্ব পড়ুন এখানে…   রাশিয়ার অভিজ্ঞতা   রোমকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠা রোমান সাম্রাজ্য প্রায় সমগ্র উত্তর ও পশ্চিম ইউরোপ এবং ভূমধ্যসাগর তীরবর্তী এশিয়া-আফ্রিকার বিশাল অঞ্চল ব্যাপী বিস্তৃত ছিল। বহুকাল পর্যন্ত তার রাজধানী রোম থেকে সমগ্র সাম্রাজ্য শাসিত হত। কিন্তু পরবর্তী সময়ে শাসনের সুবিধার জন্য সম্রাট কনস্ট্যান্টাইনের শাসনকালে ৩৩০ খ্রীষ্টাব্দে রাজধানী পূর্ব দিকের … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

ইসলাম ও আধুনিক সভ্যতা (১ম পর্ব)

    পশ্চিম ইউরোপের অভিজ্ঞতা   আধুনিক সভ্যতার যুগে বাস করেও উন্নত ও সভ্য সমাজ নির্মাণে আমাদের ব্যর্থতা কতখানি তা বাংলাদেশের আজকের বাস্তবতার দিকে দৃষ্টি দিলে সহজেই বুঝা যায়। অথচ আধুনিক সভ্যতা সম্পর্কে আমাদের অভিজ্ঞতা কম দিনের নয়। ১৭৫৭-তে ব্রিটিশ শাসন প্রতিষ্ঠিত হবার পর আমরা আধুনিক সভ্যতার অন্তর্ভুক্ত হই। তবে সেটা ছিল জাতি হিসাবে আমাদের … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

একজন অ-গারোর দৃষ্টিতে গারো জাতিসত্তা

  আলোচনার শুরুতে আমি বলে নিই যে, যদিও গারো জনগোষ্ঠীর সদস্যগণ নিজেদের মান্দি, মান্দে বা আচিক নামে অভিহিত করেন তথাপি অ-গারো লোকেরা এই শব্দের সঙ্গে তেমন একটা পরিচিত না হওয়ায় এবং মান্দি, মান্দে ও আচিক এই তিনটির কোনটি গারোদের জন্য সুনির্দিষ্টভাবে এবং এককভাবে প্রযোজ্য হওয়া উচিত এ নিয়ে গারোদের মধ্যে এখন পর্যন্ত তেমন একটা ঐক্যমত … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

সুভাষ ও বাঙ্গালী জাতি

অবশেষে ভারত রাষ্ট্রে সুভাষ বসুর নূতন করে মূল্যায়ন শুরু হ’ল। শুধু পশ্চিম বাংলার মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু নয় অধিকন্তু ভারত রাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকারও ভারতবর্ষের স্বাধীনতা আন্দোলন ও যুদ্ধে সুভাষ বসুর অবদান স্বীকার করেছেন। ইতিহাস এমনই। অথবা এমনই মানুষের মন। আজ যাকে কালো করা হয় একদিন তাকেই সাদা করার প্রয়োজন দেখা দিতে পারে। কিংবা উল্টোটা। আজ যারা … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

বাঙ্গালীর সমাজ ও জাতি গঠনের গতিধারা: একটি সংক্ষিপ্ত পর্যালোচনা

অবশ্য এই সঙ্গে ধর্মের ভূমিকাকেও আমাদের হিসাবে নিতে হবে। ইসলাম মূলত সামরিক বৈশিষ্ট্যমূলক রাজনৈতিক ধর্ম হওয়ায় ইসলামী সমাজে ঐতিহ্যগতভাবে সেনাবাহিনীই রাষ্ট্রশাসনে প্রধান নির্ধারক শক্তি হয়। পাশ্চাত্য আধিপত্য এই অবস্থায় কিছু পরিবর্তন আনলেও ইসলামের মূল প্রবণতা অনুযায়ী সমাজ যে কোনও সময় রাজনৈতিক দলের শাসন থেকে সেনা শাসনে চলে যেতে পারে। যেহেতু সমাজ তথা জনমানস বেসামরিক এবং রাজনৈতিক শাসন কিংবা গণতন্ত্রের অনুকূল নয় সেহেতু রাজনৈতিক শাসন ব্যবস্থা হয়ে থাকে দুর্বল, অস্থিতিশীল এবং ভঙ্গুর। সমাজে মোল্লা তথা ধর্মীয় শক্তি এবং ধর্মের প্রভাব বৃদ্ধির সমান্তরালে যে কোনও ধরনের অসামরিক কর্তৃত্বের দুর্বলতা ও অস্থিতিশীলতা বৃদ্ধি পায়। পাকিস্তান এর একটা মূর্ত দৃষ্টান্ত। বিশেষত মোল্লা এবং মসজিদগুলিকে নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে সেনাবাহিনী সেখানে জনগণকে নিয়ন্ত্রণের সহজ উপায় দেখতে পায়।

Posts navigation