Author: বঙ্গযান

বাম ও বামন

ভারতবর্ষে বামপন্থার ভূত ভবিষ্যৎ কী! বিশ্বের আদি বাম কে ছিলেন? বামেরা বামন হলেন কীভাবে? প্রকৃত কিংবা ভেকধারী বামাচারীদের চেনার উপায় কী? বামনাবস্থা থেকে পরিত্রাণের পথ কী? কতটা বিপরীত বা বিকল্প আজকের হতোদ্যম বামেরা? এইসব প্রশ্নের কোন ইঙ্গিত আছে কী কলিম খান এবং রবি চক্রবর্ত্তীর শব্দার্থব্যাখ্যায়?  বাম ও বামন [ বাম (বাং, বামদেব, বামপন্থী, বামা, বামী), … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

বেণীসংহার বৃত্তান্ত

বেণীসংহার বৃত্তান্ত ১ [ … “কেশ’  শব্দের একটি প্রতিশব্দ হল ‘কচ’। যেখানে মানুষের ‘কচ’-হরণ বা মালিকানা-হরণ করা হত, এককালে সেই স্থানকে বলা হত ‘কচ-হরি’। বিহারে ঐ ‘কচ-হরি’ শব্দটি এখনও অবিকল ঐভাবেই উচ্চারিত হয়; আর বাংলায় ঐ শব্দটিই ‘কাচারি’ শব্দের জন্ম দিয়েছে…”। ] ২ [“… ঐ ‘কেশ’’ শব্দই বিদেশে গিয়ে যে সকল অনাবাসী ভারতীয় উত্তরসূরীর জন্ম দেয়, … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

অংশুমালী

অংশুমালী শব্দের অর্থব্যাখ্যার আগে ‘অংশ’, ‘অংশু’ শব্দদু’টির ক্রিয়াভিত্তিক-বর্ণভিত্তিক অর্থ জেনে নেওয়া দরকার। অংশ (১) “অংশ = অস্তিত্বের রহস্যরূপের শয়ন। শব্দটির প্রকৃত রূপ হল ‘ংশ’। কিন্তু উচ্চারণের সুবিধার জন্য যেমন ‘অ’-এর আগম হয়, বাস্তবেও তেমনি তেজ মাত্রেরই আধার-এর প্রয়োজন হয়। যে তেজকে নিয়ে বাস্তবের কারবার, তার চেহারা না থাকলে তাকে নিয়ে কিছুতেই কোন কাজ-কারবার চলেনা। তাই … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

বাংলা ভাষার বিপদ কোথায় – রবি চক্রবর্ত্তী এবং কলিম খান

বাংলাভাষার বিপদ কোথায়? -রবি চক্রবর্ত্তী এবং কলিম খান   “…দয়ার উপর নির্ভর করার দীনতা যে মানুষের মনুষ্যত্ব নাশের শ্রেষ্ঠ উপায়, সেকথা অনেকেই খেয়াল রাখেন না এবং মানুষকে দয়া করতে লেগে যান। গুহ্যকরাজও ডান হাতে সর্ব্বস্ব হরণ করে বাঁ হাতে ‘এনজিও’র নামে বদান্যতা করে মনুষ্যত্বের সর্ব্বনাশ করে থাকে; এও সেই রকম। বিশ্বের মানুষের মাতৃভাষা হরণ করে … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

গো, মাংস, গো-মাংস, আমিষ, বৃথামাংস, বৃথামাংসভক্ষণ, গো-বর্দ্ধন, গোবর, গোমূত্র শব্দসমূহের ক্রিয়াভিত্তিক-বর্ণভিত্তিক শব্দার্থ

[মহারাষ্ট্রে গোমাংসভক্ষণ নিষিদ্ধ করে আইন প্রণয়ণের প্রেক্ষিতে এই প্রবন্ধের গুরুত্ব অপরিসীম। প্রাচীন ভারতীয় মনীষিদের ঘোষিত ‘গোমাংস ভক্ষণ করিও না‘ এই উপদেশ বা নির্দ্দেশ-বাক্যের প্রকৃত অর্থ কী ছিল? পাশ্চাত্য ভাষাতত্ত্বের অন্ধ-অনুকরণ করে ‘গো‘-শব্দের অজস্র অর্থের সবগুলো ফেলে দিয়ে শুধুই ‘গরু‘ এই প্রতীকী অর্থে অধঃপতিত করার করুণ পরিণতিতেই আজ গরুর মাংস খাওয়া নিষিদ্ধ হয়ে গেল। যদি যে-কোনো … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

মানবেদেহের ও সমাজদেহের রোগোৎপত্তি ও তার কারণ

[ সাম্প্রতিককালেই শুধু নয়, মাঝে মাঝেই হোমিওপ্যাথি বনাম আধুনিক চিকিৎ্সা পদ্ধতি নিয়ে বাক-বিতণ্ডা ফেসবুকসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমেও দেখা যায়। তারই প্রেক্ষাপটে এই লেখা। উপসংহারে বঙ্গযান-এর নিজস্ব মতামত রয়েছে।] ‘‘… … … হ্যাঁ। এই মৌলবাদী জীবননীতি [ একই কর্ম্মের পুনরাবৃত্তির নীতি ] গ্রহণ করবার ফলে সমাজশরীর ও মানব শরীর যুগপৎ রোগগ্রস্ত হয়ে যায়। চরকসংহিতার বর্ণনানুসারে দক্ষযজ্ঞের ওই … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

বঙ্গযানের ৫ম সম্মিলনীতে প্রদত্ত শ্রীকলিম খানের অভিভাষণ

[ গত ১৮ই নভেম্বর ২০১৭ আন্তর্জ্জালিক পত্রিকা ‘বঙ্গযান’-এর ৫ম সন্মিলনীর অধিবেশন হল কলিকাতার কলেজ ষ্ট্রীট কফি হাউসের ত্রিতলে অবস্থিত ‘বই-চিত্র’ সভাঘরে। আমন্ত্রিত সদস্যরাই উক্ত সভাঘরে অংশগ্রহণ করেহিলেন এবং সভাঘর কানায় কানায় পরিপূর্ণ ছিল। সেই সভার আলোচনার সারাৎসার পরিবেশন করব পর্য্যায়ক্রমে। আজ এখানে প্রধান অতিথি হিসাবে উক্ত সন্মিলনীতে শ্রীকলিম খান প্রদত্ত ‘অভিভাষণ’ অংশটির পূর্ণাঙ্গ বয়ান নবযুগ … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

সাহিত্য অকাদেমির ‘হরিচরণ-পূজা’ বিষয়ে ‘বঙ্গযান’ উত্থাপিত ডজন প্রশ্নমালা ও শ্রীরবি চক্রবর্ত্তী-কৃত ‘গুরুবন্দনা’

সাহিত্য অকাদেমির ‘হরিচরণ-পূজা’ (সিমপোজিয়াম) বিষয়ে ‘বঙ্গযান’ উত্থাপিত এক ডজন প্রশ্নমালা এবং শ্রীরবি চক্রবর্ত্তী-কৃত ‘গুরুবন্দনা‘ প্রশ্ন-১ ‘বড় শত্রুকে উঁচু পিঁড়ি’ দিয়ে বা পূজা করে মেরে ফেলার মহান ঐতিহ্যশালী এই দেশে গান্ধীর গলায় মালা দিয়ে পূজা করা ও গান্ধীনীতি অমান্য করা, কিংবা রবীন্দ্রনাথের গলায় মালা দিয়ে পূজা করে তাঁর শিক্ষানীতি অমান্য করা’ এ’সব তো চলছিলই; পাশাপাশি এবার … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

বাংলার মাটি বাংলার জল

  [ পূর্ব্বভারত কী পারবে তার মৌলবাদবিরোধী স্বাতন্ত্র্য, সৃজনশীল ভাষা ও সংস্কৃতির পরম্পরা ধরে রাখতে? তিন চার সহস্রাব্দ ধরে নানা জয়-পরাজয়সহ বিবিধ বিবর্ত্তন ও রূপান্তর সত্ত্বেও মৌলবাদের কাছে আত্মসমর্পণ করতে সে অস্বীকার করে এসেছে। বৈদিক ভারত যখন মৌলবাদে আক্রান্ত হয় আর্য্যবর্ত্তের তাত্ত্বিক ও সাংস্কৃতিক আধিপত্য মানতে না পেরে প্রতিবাদী ও বিরোধী একদল বেদপন্থী বেদিয়া বা … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

সখি ‘ভালবাসা’ কারে কয়

ক্রিয়াভিত্তিক শব্দার্থ- মূল শব্দটি হল ‘ভালবাসা‘। যদিও আজকাল অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ‘ভালোবাসাই’ লেখা হয়। এই শব্দটি সাধারণ বাঙালি যত না ব্যবহার করেন, তার চেয়ে অনেক বেশি ব্যবহার করেন কবি-সাহিত্যিকেরা। এবং সন্দেহ নেই প্রায় সবাই তা LOVE অর্থের ব্যবহার করে থাকেন। সংসদ অভিধান অনুসারে শব্দটির অর্থ হল– ভালবাসা– প্রণয়যুক্ত বা প্রেমযুক্ত হওয়া, অনুরাগী হওয়া; প্রীতিভাবাপন্ন হওয়া; স্নেহ … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

Posts navigation